'পাছা' কি অশ্লীল শব্দ?

NewsRoom Editor
মুহূর্তের খবর, ঢাকা

তারিখ: ২০১৪-১১-১০ | সময়: ০৬:০৪:৪১

ভদ্র এবং সুধীজনের কাছে প্রথমেই করজোড়ে ক্ষমা চাই এমন একটা শিরোনাম ব্যবহার করার জন্য। কিন্তু এ ছাড়া বিকল্প কোনো শিরোনামও ভাবতে পারছি না এই মুহূর্তে, যে মুহূর্তে সুজন সুপান্থ 'কনডম' এবং 'শুক্রাণু' শব্দ দুটিকে অশ্লীল বলে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। 

তাঁর বক্তব্য, এ ধরনের শব্দ ফেসবুকে ব্যবহার করে কেউ কেউ সস্তা জনপ্রিয়তা খুঁজছেন। এই অধম নিজে কমডম নিয়ে সাম্প্রতিককালে দুটো স্ট্যাটাস দিয়েছে। এবং নির্দ্বিধায় কনফেস করছে, অধম সস্তা জনপ্রিয়তা খোঁজে বৈকি। 

ওই দুটো স্ট্যাটাসেই, বেশ 'লাইক' ('জনপ্রিয়তা'র মাপকাঠি!) পড়েছিল। কেউ কেউ প্রশ্নও তুলেছেন। আমি ব্যাখ্যাও দিয়েছি: কনডম আমার কাছে অশ্লীল শব্দ মনে হয় না। বরং আমি ভারতীয় সেই বিজ্ঞাপনে অনুপ্রাণিত, যেটার থিম ছিল 'জোরসে বলো, কনডম'। বিজ্ঞাপনের ট্যাগ লাইন-- কনডম শব্দটি নিয়ে আপত্তি ও লজ্জা পেতে পেতে আমরা ১০০ কোটি হয়ে গেছি। আসুন নির্দ্বিধায়, সগর্বে জোরাল শব্দে উচ্চারণ করি: কনডম। 

এহ বাহ্য। এসবের সঙ্গে শিরোনামের সম্পর্ক কী? এর সঙ্গে 'পাছা'র ভদ্র-অভদ্রতা নির্ণয় হয় কী প্রকারে? 

উত্তর খুঁজতে গিয়ে আশ্চর্য হয়ে খেয়াল করি, শব্দের সামাজিক বিন্যাস। 'পাছা'র বদলে 'পশ্চাৎদ্দেশ' ব্যবহার করলে আপনারা আমার দিকে এভাবে বাঁকা চোখে তাকাতেন না। 'যৌন সঙ্গম' শব্দটা আমরা অনায়াসে লিখি, হি ওয়াজ হ্যাভিং সেক্স উইথ হিজ ওয়াইফ---বাক্যের মধ্যেও আপত্তি নেই বেশির ভাগেরই। কিন্তু সঙ্গম বা সেক্স-এর বদলে 'চ' অদ্যাক্ষরের মেঠো ভাষাটি ব্যবহার করলে বিদ্যাসাগরের জুতা তেড়ে আসবে আমার দিকে। 

কিন্তু কেন? মানে তো একই? একই অর্থ। তার পরও একটি শব্দের জায়গা হয় আমাদের ড্রয়িংরুমে, অন্যটি আস্তাকুঁড়ে? পশ্চাদ্দেশ বা সঙ্গম শব্দটার মধ্যে তৎসমের ঝংক্কার আছে বলেই কি সেটা ততটা অশ্লীল নয়, যতটা অশ্লীল পাছা? শব্দের মধ্যেও তবে আছে আছে ব্রাহ্মণ-শূদ্র, ইতর-আশরাফ! 

এবং আরও আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, একই শব্দ প্রয়োগের ভিন্নতায় কখনো অশ্লীল মনে হচ্ছে, কখনো মনে হচ্ছে না।  উদাহরণ হিসেবে 'পাছা'ই আমার কাছে উৎকৃষ্ট মনে হলো। আমরা অনায়াসে ব্যবহার করে 'আগপাছ না ভেবেই সিদ্ধান্ত নিলাম।' কিংবা 'তিনি আমাকে আগাপাছতলা পরখ করলেন।' কিংবা রংপুরের আঞ্চলিক প্রবচন: 'আগা হাল যেপাকে যায়, পাছা হালও সেপাকেই যায়।' 

এভাবেই ভাষা শ্লীল-অশ্লীল হয়ে ওঠে সমাজের অবস্থান ভেদে, অঞ্চল ভেদেও। এক দেশের বুলি অন্য দেশের গালি। আমিই স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, 'আজ টিকা দিবস। এ দিনটায় রংপুরের মানুষ যারপরনাই লজ্জিত ও বিব্রত থাকে। কারণ রংপুরী ভাষায় 'টিকা' বলতে পশ্চাদ্দেশকেই বোঝানো  হয়।'

তখন সে স্ট্যাটাসে আরও কয়েকজন বেশ কিছু আঞ্চলিক শব্দও যোগ করে স্ট্যাটাসটিকে সমৃদ্ধ করেছিলেন। আসিফ মুজতবা কবির নামের একজন জানিয়েছিলেন সিলেটে পশ্চাদ্দেশকে নাকি বলে 'কম্বল' এবং মেয়েদেরকে বলে পুরি। ফলে কোনো আবাসিক হোটেলে গিয়ে কম্বল এবং খাওয়ার হোটেলে গিয়ে পুরি চাইলে মাইর খাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা। কিংবা কেউ না বুঝে শীতকালে সিলেটে গেল 'কম্বল' বিতরণ করতে! 

সাতক্ষীরা অঞ্চলে ছোট বাচ্চাদের নাকি বলে 'নুনু'। ফরিদপুরে কোনো ব্যক্তিকে সম্মানিত করতে তাঁর নামের শেষে যোগ করা হয় 'দুদু'। জোবায়ের তনিম জানিয়েছিলেন, কক্সবাজারে পলিথিনের ব্যাগকে বলে কিস্! 

ভাষা শ্লীল-অশ্লীল হয়ে ওঠে সময়ের পরিক্রমাতেও। খোদ বিদ্যাসাগরই 'নারী' বোঝাতে ব্যবহার করেছেন 'মাগী' শব্দটি (কথা সামান্যই/সৈয়দ হক, পৃষ্ঠা ৯৯)। সেদিও কদর্য অর্থে নয়, অকালপ্রয়াত এক বালিকারা স্মরণে শোক প্রকাশ করতে গিয়ে! এখন এই শব্দ ব্যবহার করলে খোদ বিদ্যাসাগরের দিকে ধেয়ে যাবে চটি! 

আশ্চর্য, এই চটি শব্দটিও কালভেদে অন্য অর্থ ধরেছে! 

শব্দ শ্লীল-অশ্লীল হয়ে ওঠে ভাষার বোধে। 'যৌবন' শব্দটি অন্তত ক্লাস সেভেন পর্যন্ত অশিষ্ট শব্দ বলেই জেনে এসেছি। শব্দটা উচ্চারণ করতে লজ্জাই পেতাম। কাজি সাহেব যৌবনের জয়গান গেয়ে আমার ভুল ভাঙিয়েছেন। হুমায়ুন আহমেদ কিছুদিন আগে আমাদের নতুন শব্দবন্দ উপহার দিয়েছেন: 'হিন্দি চুল'! 

পাছা অবশ্যই অশিষ্ট শব্দ। এ কারণেই শুরুতে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া। সময়ের পরিক্রমায় সেটি 'ভদ্দরনোক' হতে পারবে কিনা, তা সময়ের হাতেই সঁপে দিন। কিন্তু কনডম বা শুক্রাণু, যেমনটা সুজন সুপান্থ দাবি করছেন, আমার চোখে অন্তত অশিষ্ট নয়। বেয়াড়া-বেহায়া নয়, একটু দুষ্টু, এই যা। 

রাজিব হাসান

লেখক ও কলামিস্ট





Comment Disabled

Comments